.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

শুক্রবার, ৭ এপ্রিল, ২০১৭

বৃষ্টির কবিতা

।।          রফিক উদ্দিন লস্কর ।।


(C)Image:ছবি



















১) 
বৃষ্টি আর বৃষ্টি

সাত দিন হলো বৃষ্টি আর বৃষ্টি,
প্রকৃতির মাঝে নানা রূপ সৃষ্টি।
খাল বিল নালা জলে টইটম্বুর,
গায়েতে নতুন সাজ সব অম্বুর।
বরুণ দেবতা হলা রঙে রঙিলা,
ঝড় বৃষ্টি আর মাঝে মাঝে শিলা।
শহরের প্রায় গলি জলের তলায়,
গাঁয়ের পথ ঘাট মিশিছে কাদায়।
বিঘ্ন চলাফেরা, ভয় ঝড় শিলার,
কাঁচাঘর টিন আর পড়েছে পিলার।
ভেঙেছে নীড় সাথে পাখির ডানা,
মাটিতে মিশেছে কতো অবুঝ ছানা।
জমির পানিতে কতশত ঘাড়োব্যাঙ,
দিঘি থেকে পালিয়েছে কৈ মাগুর চ্যাং।
কেউ হাসে কেউ কাঁদে বৃষ্টিতে ভিজে,
তবুও মজুরেরা ব্যস্ত তাদের কাজে।

০৩/০৪/২০১৭ইং

কি যে বৃষ্টি!

মঝমিয়ে টিনের চালে
বৃষ্টি পড়ছে আজ,
আমার বন্ধু ঘুমায় কাঁথা পরে
হাতে রেখেই কাজ।
বাদাম ভাজা, বারোমজা
বৃষ্টি এলেই জমে,
বেরিয়ে যাবো শিকার দেখতে
বৃষ্টি যদি কমে।
রাস্তাঘাট আর ক্ষেতের মাঠ
শুধু জলেই জলাকার
জেলেরা ঐ জলের মাঝে
করছে মাছ শিকার।
স্কুল থেকে সকাল সকাল
ফিরছে খোকা ঘরে,
বৃষ্টির মাঝে  বল নিয়ে
যাচ্ছে নদীর ধারে।
বাইরে ছিলাম বন্ধু ও আমি
নাই যে সঙ্গে ছাতা,
বৃষ্টির মাঝে কেমনে ফিরি
কেমনে ঢাকি মাথা।
০৪/০৪/২০১৭ ইং




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন