.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

রবিবার, ৯ এপ্রিল, ২০১৭

পদাবলি


।। অশোকাননন্দ রায়বর্ধন ।।

(C)Image:ছবি
 















দাবলি গুঞ্জনের  সঞ্চারী পেরুবার আগেই জেনে নিতে হবে

কতটা নিদমহলের কাছে পৌঁছে যায় সুরবাহার মসৃণ তানে
অন্যথায় অন্ধকূপের পরিত্যক্ত গহ্বরের জমাট মিথেন গ্যাস কেড়ে নেয় প্রাণভোমরা ।
সবকথা খুলে বলার আগে,সব আগল তুলে নেবার আগে
দক্ষিণ সমুদ্রের সঙ্গে সহেলিকথন সেরে নিতে হয় ঊষালগ্নে ।
তারপর সব মঙ্গলাচরণ সম্ভবামির ধুন জাগায় ,
তখনি গানে গানে জেগে ওঠে প্রেমসাধনের বীজকল্প ।
জাগো ওঁ, জাগো প্রেম, জাগো হে !




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন