.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বৃহস্পতিবার, ৯ নভেম্বর, ২০১৭

চলো পাল্টাই

                 
  ।।   রফিক উদ্দিন লস্কর   ।।
(C)Image:ছবি








নির্নিমেষ চাহনি ধংসযজ্ঞে কতো শতরঞ্জ খেলা,
আপন বক্ষে তীর্থজলে নিভৃতে ভাসায় ভেলা।
মুণ্ডিত মস্তক ছিন্নমূল, বিদ্ধ কাঁটা কোমল পায়,
কর্ণান্তরে আত্মার আহাজারি নীরব বধিরতায়।
ধূসর বিবর্ণ! হায়নার উদরস্থ সব ক্লোরোফিল,
বোবাকান্না শরীর জুড়ে তাই ভাষা বাক্যে খিল।
শীতল বক্ষে পুষ্ট ছিলো কতো প্রকার পরিযায়ী,
অসহায় যাযাবর ছন্নছাড়া সব, বলো কে দায়ী?
 
অভুক্ত,খাবার খুঁজিতে গিয়ে দূর দেশেতে পাড়ি,
আপন ভিটে নিয়েছে কীটে যত্তসব বাড়াবাড়ি।
বেসামাল লোভ, অস্থির স্থিতি, বড়ো সংকটময়,
সুস্থ বিবেকবান অর্থের মুখে, নিজের রক্তক্ষয়।
দিনদিন সবই ক্ষীণ একদিন পাল্টাবেও স্বরূপ,
 
নিজের চরকায় তেল দিতে গিয়ে আজ নিশ্চুপ।
হবে না বোধোদয়! কতদিন খাবো নিজের মাংস,
বিবেকের কাছে পরাজিত, তাই নিজেই ধ্বংস।
 

                ******************
০৫/১১/২০১৭ইং
নিতাইনগর,হাইলাকান্দি (আসাম-ভারত)




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন