.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বৃহস্পতিবার, ২ নভেম্বর, ২০১৭

নীরব অশ্রু- ৪৪

।। অভীক কুমার দে ।। 

(C)Image:ছবি














.
ছাইরঙা আকাশের দিকে চেয়ে থাকার মানে জিজ্ঞেস করেছিল কেউ,
হেসে বলেছি, জানো, ওখানে বৃষ্টিদের সমাবেশ,
অনেকদিন ধরেই নাকি ওদের সব জলীয় ভাবনায় 

কোন স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠীর গোপন চলাচল,
তরল মনের গঠনতন্ত্রে সমকালীন দূষণ,
অথচ ভিন্ন পরিভাষায় দুর্ভাগ্যের ভুতুড়ে নৃত্য !
বিষিয়ে তুলেছে, ডোবা নালা খাল বিল পুকুর নদী...
অসুস্থ জলঘরে রোজ মৃত্যু খবর।
.
জলস্তর থেকে সমুদ্রসীমানায় খবর এলে--
নিম্নচাপ ঘন হয় বুকের ভেতর,
এমন জলরাগের ছাইরঙা শরীর একদিন ভাসিয়ে নেবে সব...



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন