.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বুধবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৭

মিছিল

।। অভীক কুমার দে।।


(C)Image:ছবি























.
নিজের ভেতর নিজের দ্বিতীয় থাকে,
বরফ ছুঁয়ে ফিরে আসা বাতাস জানে
পাঁজরের খুঁটি সরে যাবে একদিন
তারপর রাস্তা...
.
খোলা আকাশ, 

টানটান সুতো,
কারো ভোমরা ঘুড়ি খসে গেলে নীরব প্রথম,
নীরবেই পোড়ায় শরীর
পোড়ে শব্দ
অথচ এতো নীরবতা চায় না মাটি
চায় না পায়ে হেঁটে লাইন টেনে যাক স্বজনহারা
শোক
মিছিল নামের নিঃশব্দ খরায় রসগোল্লা 

রসের দাগ
গোপন হাসি 

ক্যামেরার ঝিলিক 

চামড়ার ফাটলে পুঁতে রাখে তিলে তিলে মারণ বীজ;
এমন নীরবতা চায় না মাটি 

ভেতরে নিজেরও দ্বিতীয় আছে
এবং আরেকটা মিছিল...
.....................



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন