.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বুধবার, ১০ জানুয়ারী, ২০১৮

অন্যরকম


          ।।      রফিক উদ্দিন লস্কর    ।।


(C)Image:ছবি














হিমালয় থেকে সে আসে ধেয়ে সকাল সন্ধ্যায়
জড়সড় হয়ে থাকি একচিমটি রোদের আশায়।
দিনের বেলায় জ্বলে রাস্তায় গাড়ির হেডলাইট,
সকাল বেরুতে হয় করে বিছানার সাথে ফাইট।
পানির মৃদু পরশ নেওয়া তাতে লাগে বড় ভয়,
সত্যি ভালো লাগে তাকে, যদি ঈষৎ উষ্ণ হয়।
সিগারেট খাইনা তবু ধোঁয়া বের হয় মুখ দিয়ে
দাউদাউ আগুন হলে ঘিরে বসি তাকে নিয়ে।
রোদেলা দুপুর হলে লাগে সবার বড্ড ভালো,
মেঘলা আকাশে করে নেয় হাসিমুখ কালো।
ধূলিকণা মেখে বাড়ি ফেরা, কি কষ্ট নাওয়া !
আড্ডায় সময় দেয় মনে হয়নি বাড়ি যাওয়া।
জটলা করে বসলে চলে কতো গল্প গুজব,
আলসেমিরা কাবু করে,
  তাই বসে থাকে সব।
গভীর রাতে বাড়ি ফিরে চাই এক উষ্ণ চাদর,
হিমের দেশে আজব বেশে লাগে যেন বাঁদর!
১০/০১/২০১৮ ইং
নিতাইনগর, হাইলাকান্দি (আসাম)





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন