.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

শনিবার, ৬ জানুয়ারী, ২০১৮

দগ্ধ জীবন


   ।।         রফিক উদ্দিন লস্কর        ।।

ঘুমের ঘোরে স্বপ্ন দেখে বড্ড ক্লান্ত আজ,
চারিদিক নীরব আর শূণ্যতা এখন।
মরচে পড়া কথা হানা দেয় মনের দুয়ারে,
বধিরত্ব এখন যে জন্মগত অভ্যাস।
আজ মস্ত অপরাধী, শুধু হা করে তাকাই,
কুসুমিত পথে হয়েছি পথের কাঁটা।
অবান্তর স্বপ্ন নিয়ে রোজ চষি ময়দানে,
খরায় বানে সখ্যতা গড়ে উপকূলে।
ধরাবাঁধা নেই, নীলাম্বরে উড়ে রঙিন ফিতা,
সুদূরের চিত্র ফুটে ঝাপসা চোখে।
দিগভ্রান্ত পাখি কুলায় ফেরার ভীষণ তাড়া,
দাবানল এগিয়ে আসছে দৃশ্যমান।
মহাকাশে উড়ে আগুণের লেলিহান শিখা,
তুষারের বুকে তার দগ্ধ হয় জীবন।

০৬/০১/২০১৮ইং
ঘুংঘুর, শিলচর (আসাম-ভারত)




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন