.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বুধবার, ১০ জানুয়ারী, ২০১৮

প্রতিদান

।। অভীক কুমার দে।।
(C)Image:ছবি











তোমরা আমার শক্তি- সামর্থ্য- যৌবন- বয়স নিয়ে শক্তিশালী। ফলস্বরূপ যে বিস্ময়কর প্রতিক্রিয়াশীল পরিবেশ পেলাম তা যথেষ্টই উপন্যাস। উপন্যাস আমার ভেতর হাড় বেয়ে উঠছে। বছরের পর বছর কাগজের মতো এই এক শরীর। অবশ হবার নোটিশ নিয়ে যায় প্রতিবেলার পেটে। আমি লিখতে চাইনি এমন উপন্যাস যার পাতায় জীবন ঢেলেই অপ্রয়োজনীয় শরীর। আমি চাইনি সফলতার দৌড়ে উত্তীর্ণ না হয়ে বয়স উত্তীর্ণ হোক। শুধু তোমাদের কারণে প্রতিদিন প্রতিবেলায় এক একটা কঙ্কাল নিয়ে ঘুরি নিজের।
যা কিছু বেদনা নেড়েচেড়ে দেখি, ওখানে আমার মৃত্যু করে বাস। আভাস পেয়ে ছুটে আসে কোন প্রজন্ম স্বপ্ন, ছুঁয়ে দেখতে গেলেই কারো স্বচ্ছ প্রতিবন্ধকতা সামনে এসে দাঁড়ায়। স্বপ্ন হারায়। জ্বলে যায় প্রতিদিন আমি। ধোঁয়া রাখি তোমাদের আকাশে।




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন