.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

রবিবার, ১ এপ্রিল, ২০১৮

বলা হলো না

কি কথা বলবে বলে কাছে এসে ছিলে

বেলা শুধু বয়ে গেল , বলা হলো না ।

দেখা হলো, চোখে চোখে কথা হলো 

গুনগুন কত গান পাশাপাশি গাওয়া হলো

হাতে রাখা হাতে আনে উষ্ণতা , ভয় 

মনে গাঁথা কথামালা, ভাষা পেলো না  

বেলা শুধু বয়ে গেল, বলা হলো না ।

নদী বুকে ঢেউ ভাসে, কুল খুঁজে ফিরে 

পাখি যারা যায় উড়ে কজনা তার ফিরে ।

কত ফোঁটা ফুল বলো ভালবাসা পায়?

সারাদিন সেজে থাকা, পথের ধূলায়;

ঝর্ণার জল খোঁজে নদী মোহনা

যে কথা বলতে ছিলে শোনা হলো না ।

বেলা শুধু বয়ে গেল, বলা  হলো না ।

মেঘ ডাকে ময়ূরীকে, পেখম খোলো 

বঁধুয়াতে অবগাহন  বিহারেতে  চলো

জ্যোৎস্নার  আলোকেতে জোনাকি পালায়

অভিমানে ভালবাসা পথ যে হারায়

সব চাওয়া পাওয়া যাবে , এতো হয় না 

না বলা কথা গুলো ভাষা পেলো না 

বেলা শুধু বয়ে গেল শোনা হলো না । 

কি কথা বলবে বলে কাছে এসে ছিলে

বেলা শুধু বয়ে গেল , বলা হলো না ।






একটি মন্তব্য পোস্ট করুন